৭টি কারণে, ফ্রি ওয়েবসাইট হোস্টিং নির্বাচন করা একটি ভুল সিদ্ধান্ত!

অনেকেই দেখি ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর সন্ধান করেন, আর ইন্টারনেটে ও এমন ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানির কোন অভাব নেই। কিন্তু কখনো কি ভেবে দেখেছেন, তারা কেন আপনাকে ফ্রি ওয়েব হোস্টিং প্রভাইড করছে? যেখানে তাদের নিজেদেরই সার্ভার বিল প্রদান করতে হয়? যদি ফ্রি হোস্টিং কোম্পানি গুলো এতোই ভালো হয়ে থাকে, তাহলে সকলেই ওয়ার্ডপ্রেস সাইট হোস্ট করার জন্য ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কেন ইউজ করছে না? এই আর্টিকেলে ৭টি এমন কারণ ব্যাখ্যা করার চেষ্টা করবো যেটা প্রমান করবে, ফ্রি ওয়েবসাইট হোস্টিং নির্বাচন করা একটি ভুল সিদ্ধান্ত! — আপনি যেনে অবাক হবেন হয়তো, অনেক সময় ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি পেইড হোস্টিং থেকেও বেশি চার্জ করতে পারে আপনাকে!


ফ্রি ওয়েব হোস্টিং বলতে কি বোঝায়?

অনেক বিগেইনার ফ্রি ওয়েব হোস্টিং খুঁজে থাকেন, মানে তারা একেবারেই নতুন আর প্রথমেই ওয়েব হোস্টিং এর জন্য টাকা খরচ করতে চান না! ওকে, ব্যাপারটা সম্পূর্ণই বোধগম্য! তারপরে তারা গুগল সার্চ করে আর সহজেই এমন হাজারো কোম্পানির ঠিকানা পেয়ে যান, যারা কোন প্রকারের পেমেন্ট ছাড়ায় আপনাকে ওয়েব হোস্টিং অ্যাকাউন্ট তৈরি করার সুযোগ তৈরি করে দেয়।

আপনি তাদের ফ্রি প্ল্যানে সাইন-আপ করেন তারপরে ধীরেধীরে অনেক রেস্ট্রিকশন ডিস্কভার করতে শুরু করেন। তারপরে জানতে পারা যায় অনেক ফ্রিতে দাবি করা ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি আসলে সম্পূর্ণ ফ্রি নয়।

যদি আপনিও এমন ফ্রি ওয়েবসাইট হোস্টিং কোম্পানির পেছনে ছোটার চিন্তা করেন আর ওয়েবসাইট ফ্রিতে হোস্ট করা নিয়ে ভাবতে থাকেন, তো আমি বলবো এক্ষুনি থেমে যান, আর পূর্বে এই আর্টিকেলটি পড়ে নিন! 

ফ্রি ওয়েব হোস্টিং স্লো এবং অ-পেশাদারী

বেশিরভাগ ফ্রি ওয়েবসাইট হোস্টিং কোম্পানি একটি সিঙ্গেল সার্ভারে শতশত ওয়েবসাইট হোস্ট করে, ফলে আপনার ওয়েবসাইট অনেক স্লো পারফর্ম করতে পারে। তারা ফ্রি ওয়েব হোস্টিং প্রভাইড করছে, তাই তারা মোটেও আপনার সাইটের পারফর্মেন্স নিয়ে চিন্তা করবে না, আর আপনি ও তাদের জিজ্ঞেস করতে পারবেন না। কিন্তু অপরদিকে স্লো ওয়েবসাইট ইউজার এক্সপেরিয়েন্স এর জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর, সাথে এসইও এর জন্য ও এক্কেবারে অগ্রহণযোগ্য!

ফ্রি ওয়েবসাইট বানাতে গিয়ে আপনাকে সাধারণত ফ্রি সাবডোমেইন দেওয়া হয়, যেটা মোটেও পেশাদারী নয়। আপনার ফ্রি হোস্টিং সাইটের ওয়েবসাইট অ্যাড্রেস কিছুটা এমন হয়; https://youname.freewebhosting.com — এই ডোমেইন নাম দিয়ে আপনি কিছুতেই আসল কাস্টমার গেইন করতে পারবেন না। আপনার সাইট দেখতে স্ক্যাম মনে হবে।

অনেক ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে যারা কাস্টম ডোমেইন অ্যাড করতে দেয়, কিন্তু এতে হয়তো আপনাকে তাদের প্রিমিয়াম প্ল্যান নিতে হবে বা তাদের থেকেই আপনার ডোমেইন নেমটি রেজিস্টার করাতে হবে। ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি গুলোর প্রিমিয়াম প্ল্যান ভালো পেইড হোস্টিং কোম্পানি গুলো থেকেও  বেশি হতে পারে অনেক সময়। আর তাদের থেকে ডোমেইন কিনতে গেলে ১.৫ হাজার থেকে ২.৫ হাজার পর্যন্ত খরচ লাগতে পারে, যেখানে সাধারণ ডোমেইন রেজিস্টারার আপনাকে মাত্র ৫০০-৮০০ টাকার মধ্যে ডোমেইন দিতে পারে।

ফ্রি ট্রায়াল মানে কিন্তু ফ্রি নয়

অনেক ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে যারা প্রথমে কয়েক মাস বা কয়েক দিনের জন্য তাদের প্ল্যাটফর্ম ফ্রিতে ব্যবহার করার আক্সেস প্রদান করে, কিন্তু এটা সম্পূর্ণ ফ্রি হয় না। নির্দিষ্ট সময় পরে আপনাকে পেমেন্ট করতেই হবে, না হলে তারা আপনার হোস্টিং অ্যাকাউন্ট সাস্পেন্ড করে দেবে আর আপনি ওয়েবসাইট ডাটা গুলো হারিয়ে ফেলবেন।

এখানে প্রোডাক্ট কিন্তু আপনি!

নানান কোম্পানি গুলোর মতো, ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি গুলোকেও কিন্তু অর্থ উপার্জন করতে হয়। তারা হয়তো আপনার থেকে সরাসরি অর্থ চাচ্ছে না প্রথমে, কিন্তু আপনার দ্বারায় তারা অর্থ উপার্জনের পথ বের করবে। একটা কমন জিনিষ চিন্তা করে দেখুন, যদি তারা সবকিছু ফ্রিতেই দেয় তো কোম্পানি চলে কিভাবে?

আপনার ওয়েবসাইট হয়তো ট্র্যান্সফার করতে হবে বা ধরুন আপনার এফটিপি আক্সেস প্রয়োজন, সেক্ষেত্রে তারা নর্মালের চেয়ে বেশি চার্জ করবে আপনাকে। প্রথমে আপনাকে লিমিটেড ডিস্ক স্পেস প্রদান করবে তারপরে আপনার আরো ডিস্ক স্পেস লাগলে সাধারনের থেকে অনেক বেশি টাকা চুকিয়ে ডিস্ক স্পেস বাড়াতে হবে। অনেক ওয়েব ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি আপনার ওয়েবসাইটে তাদের অ্যাডস লাগিয়ে অর্থ উপার্জন করে। আপনার সাইটে আজাইরা অনেক বিজ্ঞাপনে তারা ভরিয়ে দিতে পারে। কিন্তু আপনার নিজের সাইটে হয়তো আপনি নিজেই কোন বিজ্ঞাপন দিতে পারবেন না।

অনেক ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি রয়েছে যারা আপনার ইনফরমেনশন সেল করে টাকা ইনকাম করে। দেখুন, তাদের তো কোন না কোন ভাবে অর্থ পেতেই হবে, তাই না? সেটা আপনার তথ্য অন্যের কাছে বেচেই হোক না কেন, তাদের কোন যায় আসে না। তারা আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস সেল করতে পারে, আপনার যেকোনো পার্সোনাল তথ্য সেল করতে পারে এমনকি ওয়েবসাইট ডাটা ও সেল করতে পারে।

অনেক সময় ফ্রি ট্রায়াল সার্ভিস নেয়ার জন্য আপনার ক্রেডিট কার্ড সেট করতে বলে, আর ট্রায়াল পিরিয়ড শেষ হওয়ার পরে এরা কোন ওয়ার্নিং ছাড়ায় কার্ড থেকে টাকা চার্জ করতে পারে!

লিমিটেড রিসোর্স

ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর ক্ষেত্রে সবকিছুই হবে লিমিটেড, আপনাকে লিমিটেড ডিস্কস্পেস দেওয়া হয় অনেক সময় ডিস্কস্পেস আরো কমিয়ে দেওয়া হয়। ব্যান্ডউইথ লিমিটেড করা হয়, আপনার সাইট নির্দিষ্ট কিছু সময়ে ডাউন থাকতে পারে, কেনোনা তারা একই সার্ভারে বহু সাইট হোস্ট করায়।

এরকম লিমিটেড হোস্টিং এ সাইট হোস্ট করলে, বিশেষ করে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে অনেক টাইপের এরর ম্যাসেজ দেখাতে শুরু করে। সাথে এদের প্রিমিয়াম প্ল্যানে অনেক কম ভাল্যু থাকে যেখানে অনেক বেশি কস্ট করার চেষ্টা করবে এরা।

সবকিছুতেই সমস্যা

এক কথায় বলতে পারেন, ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর অপর নামই হচ্ছে “সমস্যা” — আপনার সাইটের সিকিউরিটি অনেক দুর্বল হবে, হ্যাকার সমান্য চেষ্টা করেই হয়তো হ্যাক করতে ফেলতে পারে। যেহেতু তারা ফ্রি ওয়েব হোস্টিং প্রদান করছে তাই আবার টাকা ইনভেস্ট করে সিকিউরিটি দেখতে যাবে না। আপনি কাস্টমার সাপোর্ট পাবেন না, আর কাস্টমার সাপোর্ট চাইবেন ও বা কিভাবে? আপনি তো কোন টাকায় পে করছেন না, তারা আপনার কিছুই শুনবে না।

যেকোনো সময় আপনার ওয়েবসাইট ব্লক বা ডিলিট করে দিতে পারে, সেক্ষেত্রে আপনার সাইটের ডাটা গুলো হারাবেন। তারা সাধারণত ফ্রি সাব-ডোমেইন প্রদান করে, একবার সাইট সাস্পেন্ড করে দিলে আপনি কোনভাবেই সেই সাব-ডোমেইনকে রি-ডাইরেক্ট করে আলাদা অ্যাড্রেসে ট্র্যাফিক মুভ করতে পারবেন না।

বিশ্বাস করুন, ফ্রি ওয়েব সাইট হোস্টিং সম্পূর্ণই যা ইচ্ছা তা… আপনি প্র্যাকটিস করার জন্য যদি ফ্রি হোস্টিং ইউজ করেন, সেটাও আপনার পেছনে ব্যাথার তৈরি করবে। তাই এগুলো থেকে ১০০ গজ নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখায় ভালো!

ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি যেকোন মুহূর্তে ফুড়ুৎ হতে পারে

যেকোনো সময় আপনার ফ্রি ওয়েব হোস্টিং কোম্পানি সিদ্ধান্ত নিতে পারে আর কম্বল গুছিয়ে বিজনেস থেকে উড়ে চলে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে আপনার ওয়েবসাইট রাতারাতিই ডেড হয়ে যাবে। আপনি সাব ডোমেইন কোনভাবেই নতুন ডোমেইনে রিডাইরেক্ট করতে পারবেন না। সাথে সকল ওয়েবসাইট ডাটা গুলো হারিয়ে ফেলবেন।

ফ্রি ওয়েব হোস্টিং = সময়ের নষ্ট

অনেকেই বিগেনার হিসেবে এবং প্র্যাকটিস করার জন্য ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর শরণাপন্ন হতে চান। তারা মনে করেন কাজ শেখার পরে বা সাইট জনপ্রিয়তা অর্জন করার পরে পেইড হোস্টিং এ সাইট মুভ করবেন, কিন্তু সকল দিক থেকেই এটা সময়ের অপচয়। একে তো লিমিটেড রিসোর্সের মধ্যে আপনি তেমন কিছু শিখতেই পাবেন না, আর অন্যদিকে কে জানে আপনার সাইট কয়দিন বেচেই থাকবে! তাই এগুলো চিন্তা মাথা থেকে দূর করে কোন ভালো পেইড হোস্টিং সন্ধান করুন, সেটাই সবদিক থেকে বেস্ট হবে!


তাহলে উপায় কি?

ফ্রি ওয়েব হোস্টিং এর বেস্ট বিকল্প হচ্ছে পেইড ওয়েব হোস্টিং — বছর ৫ আগের মতো কিন্তু প্রিমিয়াম ওয়েব হোস্টিং এখন আর অত্যন্ত দামী নেই। মাত্র ৫০০-৮০০ টাকা খরচ করার মাধ্যমে আপনি একটি কাস্টম ডোমেইন কিনতে পারেন, যেটা আপনার ব্র্যান্ডকে অনেক ভালোভাবে রিপ্রেজেন্ট করবে। সাথে মাত্র ১০০০ টাকার মতো খরচ করে প্রিমিয়াম শেয়ারড হোস্টিং কিনতে পারবেন, তাও সারা বছরের জন্য!

আমাদের এক্সেলনোড হোস্টিং প্ল্যান চেক করতে পারেন এখানে আর এখান থেকে ডোমেইন প্রাইস দেখে নিন! প্রত্যেক হোস্টিং প্ল্যানের সাথে রয়েছে ফ্রি ব্যাকআপ সুবিধা, ফ্রি সাইট মাইগ্রেশন সুবিধা, ও ২৪/৭ ডেডিকেটেড সাপোর্ট! আমাদের হোস্টিং সার্ভিস নিয়ে সম্পূর্ণ রিভিউ ওয়্যারবিডি ডট কম থেকে পড়ে নিতে পারেন!


পরিশেষে বলবো, ফ্রি ওয়েব হোস্টিং সম্পূর্ণই একটি ব্যাড আইডিয়া, সেটা কিভাবে তা উপরে বর্ণিত করেছি। আপনি যেকোনো রেপুটেড হোস্টিং কোম্পানি থেকেই পেইড ওয়েব হোস্টিং গ্রহণ করতে পারেন, অন্তত ফ্রি হোস্টিং থেকে সেটা বেটার হবে। আর যদি আমাকে জিজ্ঞেস করেন, তো এক্সেলনোড অন্তত একবার হলেও ট্রায় করতে বলবো, এক্সেলনোড সত্যিই ট্রায় করার যোগ্যতা রাখে!

এক্সেলনোড প্রো টিপস গুলো ইনবক্সে পেতে ভুলবেন না!

About the Author: ExelNode

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রিমিয়াম ওয়েব হোস্টিং জিতুন ফ্রিতে!

প্রিমিয়াম ওয়েব হোস্টিং জিতুন ফ্রিতে!

আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস প্রবেশ করিয়ে ১ বছর পর্যন্ত ফ্রি ওয়েব হোস্টিং জিতে নিন!

আপনি সফলভাবে সাবস্ক্রাইব করেছেন!