লাইট স্পীড ক্যাশ (LiteSpeed Cache) (LSCache) এর বেস্ট সেটিংস/কনফিগারেশন! [টিউটোরিয়াল]

লাইট স্পীড ক্যাশ (LiteSpeed Cache) (LSCache) এর বেস্ট সেটিংস/কনফিগারেশন! [টিউটোরিয়াল]

আপনি যদি লাইট স্পীড সার্ভারে ওয়ার্ডপ্রেস সাইট হোস্ট করে থাকেন, সেক্ষেত্রে সবচাইতে বড় সুবিধাটি হচ্ছে সম্পূর্ণ ফ্রিতে লাইট স্পীড সার্ভারের অফিশিয়াল ক্যাশিং টেকনোলোজি লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইন ইউজ করতে পারবেন। লাইট স্পীড ক্যাশ অনেক পাওয়ারফুল একটি প্লাগইন যদি সেটাকে সঠিকভাবে কনফিগার করতে পারেন। অনেক পেইড ওয়ার্ডপ্রেস ক্যাশ প্লাগইনের মধ্যেও এতো ফিচার খুঁজে পাবেন না, যেটা একটা সিঙ্গেল লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইন এ রয়েছে।

আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে তখনই লাইট স্পীড ক্যাশ ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগইনের সকল সুবিধা গুলো পেতে পারবেন, যখন লাইট স্পীড ওয়েব সার্ভার ইউজ করবেন। আর আপনাকে জানিয়ে রাখি, এক্সেলনোডের সকল হোস্টিং প্ল্যান গুলোতেই লাইট স্পীড ওয়েব সার্ভারের সাপোর্ট রয়েছে। তাই এক্সেলনোড কাস্টমার হিসেবে আপনি সহজেই লাইট স্পীড ক্যাশ ইউজ করে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটকে রকেট বানিয়ে ফেলতে পারবেন।

তো আজকের টপিক হচ্ছে, একজন বিগেনার হিসেবে লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইনের বেস্ট কনফিগারেশন কিভাবে সেট করবেন? ক্যাশ কনফিগার কিন্তু অন দ্যা গো কোন কাজ নয়, আপনি ইন্সটল করলেন আর ফেলে রাখলেন! আপনাকে বুঝতে হবে আপনি সত্যিই কি করছেন, তবেই রকেট লেভেল স্পীড অর্জন করতে পারবেন। তো শুরু করা যাক…


লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইনের বেস্ট সেটিংস

তো আপনি লাইট স্পীড ওয়েব সার্ভারে আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইট হোস্ট করলেন, লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইন ও ইন্সটল করলেন, এবার কি করবেন? অনেকে জাস্ট বেসিক সেটিংস গুলোতেই রেখে দেয়, যেখানে অনেকে সকল ট্যাব গুলো এক্সপ্লোর করে কি করছে সেটার সম্পর্কে ধারণা রাখে আর বেস্ট কনফিগারেশন তৈরি করে।

তো আপনি যদি দ্বিতীয় দলের হয়ে থাকেন, হ্যাঁ, আপনি এক্কেবারে সঠিক জায়গাতেই এসেছেন। আজকে আমরা লাইট স্পীড ক্যাশ এর বেস্ট কনফিগারেশন গুলো নিয়ে আলোচনা করবো, সাথে প্রসেস গুলো সহজ ভাষায় বুঝানোর চেষ্টা করবো, যাতে একজন বিগেইনার হিসেবে ও আপনি সবকিছু বুঝতে পারেন।

লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগিন এর প্রধানত দুইটি কাজ রয়েছে, প্রথমত এটি আপনার ডাইন্যামিক ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের পেজ গুলোকে ক্যাশ করে নেয়, যাতে সার্ভারে লোড কমিয়ে দ্রুত ভিজিটরের কাছে পেজটি রেন্ডার হতে পারে। দ্বিতীয়ত, আপনার সাইট অপটিমাইজেশন করতে সাহায্য করে। তো আপনি যদি শুধু ক্যাশিং ফাংশন ইউজ করার লক্ষে LSCache প্লাগইন ইউজ করেন তো জাস্ট প্লাগইনটি অ্যাক্টিভ করে LiteSpeed Cache > Settings > General থেকে Enable LiteSpeed Cache এনাবল করে দিলেই আপনার কাজ শেষ! আর কিচ্ছু করতে হবে না। আপনি একে ডিফল্ট সেটিংস এই রেখে দিন, মোস্ট ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে এটা আরামেই কাজ করবে।

আপনি এখনো এই আর্টিকেলেই রয়েছে? ওয়েল, এর মানে আপনার নিশ্চয় শুধু ক্যাশিং ছাড়াও আরো কিছু দরকার! নিচে প্রত্যেকটি ট্যাব সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করবো, যাতে আপনি সত্যিই বুঝতে পারেন, কোন ফাংশন ঠিক কোন কাজের জন্য রাখা হয়েছে।

প্রথমে এই প্লাগইনের সেটিং সম্পর্কে ধারণা নেওয়া যাক, এখানে তিন টাইপের সেটিংস রয়েছে। প্রথমবার ইউজ করার সময় এই প্লাগইনটি বসিক মোডে থাকে। তখন কেবল ৪টি ট্যাবই দেখতে পাওয়া যায় যেগুলো সাইটের ক্যাশ রিলেটেড ফাংশন এনাবল করতে পারে। যদি আপনি Show Advanced Options বাটনে ক্লিক করেন, সেক্ষেত্রে ৮টি নতুন ট্যাব উন্মোচিত হবে। কোন ট্যাব গ্রুপ কোন কাজের জন্য নিচের স্ক্রীনশট থেকে ব্যাপারটি পরিষ্কার হতে পারবেন।



General

চলুন, প্রথমে General ট্যাব থেকে শুরু করা যাক, এটা বেসিক ট্যাব, যেখানে এক ক্লিকেই ক্যাশিং ফ্যাংশন অন বা অফ করতে পারবেন। Enable LiteSpeed Cache এনাবল বা ডিসেবল করলে কি হবে সেটা নিশ্চয় আবারো বুঝানোর দরকার নেই। এরপরে এই পেজে TTL নামক অনেক ফাংশন দেখতে পাবেন; যেমন- Default Public Cache TTL, Default Front page TTL — ইত্যাদি। এখানে TTL বলতে “Time to Live” বুঝানো হয়েছে।

ভালো করেই দেখতে পাবেন এখানে সেকেন্ড হিসেবে ভাল্যু সেট করা রয়েছে। এরমানে হচ্ছে, যদি এই নির্দিষ্ট সেট করা সময় ওভার হয়ে যায়, লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগিন ঐ অংশের জন্য তৈরি করা ক্যাশ গুলো নিজে থেকে মুছে ফেলবে এবং নতুন ক্যাশ তৈরি করবে। মোস্ট অফ দ্যা টাইম এই এই সেটিংস গুলোকে ডিফল্টভাবেই রাখতে বলবো, এতে যেকোনো সাইটের সাথে পারফেক্টভাবে কাজ করবে। তবে আপনি আপনার চাহিদা অনুসারে এই সময় গুলোকে বারিয়ে বা কমিয়ে নিতে পারেন।

ধরুন আপনার হোমপেজ অনেক বেশি আপডেট হয় প্রত্যেকদিন। সেক্ষেত্রে, Default Front page TTL এর সময় কমিয়ে দিতে পারেন। আবার স্ট্যাটিক পেজ, যেটা অনেক দেরিতে আপডেট করেন সেক্ষেত্রে সময় বাড়াতে পারেন। তবে ডিফল্টভাবে রেখে দেওয়ায় বেস্ট।

Cache

ক্যাশ ট্যাবে আপনি নির্ধারণ করতে পারবেন, আপনার সাইটের কোন টাইপের কন্টেন্ট গুলোকে আপনি ক্যাশ করতে চান আর কোন টাইপের কন্টেন্ট গুলোকে ক্যাশ করতে চান না। Cache Logged-in Users, Cache Commenters, Cache Login Page — ইত্যাদি এই টার্ম গুলো থেকে সহজেই বোঝা যায় এখানে কি কি ক্যাশিং করার কথা বলা হয়েছে। ডিফল্টভাবে এই ট্যাবে সবকিছুই এনাবল করা থাকে, বেস্ট ক্যাশিং এক্সপেরিয়েন্সের জন্য আমি ডিফল্ট সেটিংই রাখতে বলবো এখানে। তারপরে ও আপনার ইচ্ছা মতো আডজাস্ট করে নিতে পারেন যেকোনো সময়।

আর হ্যাঁ, আপনার সাইটে যদি AMP এনাবল করা থাকে বা মোবাইলের জন্য আলাদা ডিজাইন হয়ে থাকে সেক্ষেত্রে Cache Mobile অপশনটি এনাবল করতে হবে, নতুবা একে অফই থাকতে দিন!

Purge

এই ট্যাবটি মূলত ক্যাশ করা পেজ গুলো রিমুভ করার জন্য ব্যাবহৃত হয়। ধরুন আপনি সাইট আপডেট করেছেন, সেক্ষেত্রে নিশ্চয় আগের পুরাতন ক্যাশড ভার্সনই দেখাতে চাইবেন না? নতুন ভার্সন তখনই দেখানো হবে যখন পুরাতন ক্যাশ গুলোকে পার্জ করা হবে এবং নতুন ক্যাশ তৈরি হবে। শুধু তাই নয়, আপনার সাইটে কোন নতুন প্লাগইন এনাবল/ডিসেবল, ইন্সটল/আনইন্সটল করার পরেও ক্যাশ পার্জ করার দরকার পরে। এখন এই পার্জ গুলো কখন কিভাবে স্বয়ংক্রিয়ভাবে হতে পারবে সেটা কনফিগ করার জন্যই এই ট্যাব!

Purge All on Upgrade — এই ফাংশনটি ডিফল্টভাবে এনাবল করা থাকে, আপনার সাইটে কোন থিম, প্লাগইন, অথবা ওয়ার্ডপ্রেস কোর আপগ্রেড হলে সকল ক্যাশ স্বয়ংক্রিয়ভাবে পার্জ হয়ে যাবে। আপনি যদি এই অপশনটি ডিসেবল করে দেন তাহলে সেটা আপনাকে প্রত্যেকবার মেনুয়ালভাবে হ্যান্ডেল করতে হবে।

এরপরে আসে, Auto Purge Rules For Publish/Update  — এখানে দেখতেই পাচ্ছেন, কোন পেজ গুলো আপডেট বা পাবলিশ করার পরে ক্যাশ স্বয়ংক্রিয় পার্জ হবে যেটা সেট করা যাবে। ব্যাস ডিফল্টভাবেই একে রেখে দিতে পারেন, কিংবা নিজের ইচ্ছা মতো সেট করে নিতে পারেন।

Scheduled Purge URLs — এই অপশনে আপনি ইচ্ছা মতো কাস্টম ইউআরএল যুক্ত করতে পারবেন। প্রত্যেক লাইনে আলাদা আলাদা ইউআরএল যুক্ত করতে পারবেন। আর Scheduled Purge Time অপশন থেকে সিডিউল টাইম সেট করতে পারবেন। এখন বলে রাখি, এই ফাংশনের জেনারেলভাবে কোন দরকার নেই, লাইট স্পীড ক্যাশ নিজস্বভাবেই বেশিভাগ পার্জ হান্ডেল করে থাকে। তারপরেও যদি কোন কারণে এই সেটিং এর দরকার পরে, সেক্ষেত্রে এনাবল করে নিতে পারেন!

Excludes

এবার ক্যাশিং এর এই অংশটি হচ্ছে লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগিন সাইটের ঠিক কোন কোন অংশ ক্যাশের আওতায় অন্তর্ভুক্ত করবে না তার কম্যান্ড। আবারো বলে রাখছি, এখানে বেশিরভাগ সেটিংস ই পরিবর্তন করার কোনই দরকার নেই। তবে কোন স্পেশাল প্রয়োজনে এই সেটিংস গুলো পরিবর্তন করতে পারেন।

এখানে উপরের কোন সেটিংস এই হাত দেওয়ার দরকার নেই, তবে একটি অপশন কাজে লাগতে পারে, সেটা হচ্ছে Do Not Cache Roles — এখানে কোন টাইপের ইউজারদের কাছে ক্যাশ ভার্সন সার্ভ করা হবে আর হবে না সেটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন।


এখন বাকি ট্যাব গুলো হচ্ছে, অ্যাডভান্স ইউজারদের জন্য, বিশেষ করে আপনি যদি লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইন ইউজ করে সাইট অপটিমাইজ করতে চান সেক্ষেত্রে এই ট্যাব গুলোর সেটিংস কনফিগ করতে হবে। এই আর্টিকেলে আমি অ্যাডভান্স সেটিংস গুলো দেখাবো না। যেহেতু এটা বিশেষ করে বিগেনারদের টার্গেট করা আর্টিকেল। তবে অবশ্যই আরেকটি আর্টিকেলে এই অ্যাডভান্স সেটিংস গুলো নিয়ে ধাপেধাপে আলোচনা করবো।

অ্যাডভান্স সেটিংস এও কিছু ক্যাশ সেটিংস রয়েছে, যেগুলোকে অ্যাডভান্স ক্যাশ সেটিংস বলতে পারেন। সাইট অপটিমাইজেশন নিয়ে নেক্সট আর্টিকেল আসছে, সেখানে বিস্তারিত অপটিমাইজেশন সেটিং গুলো থাকবে আর এখানে অ্যাডভান্স ক্যাশ নিয়ে অন্তত একটা ওভারভিউ নেওয়া যাক…

ESI

ESI এর পূর্ণ রুপ হচ্ছে, “Edge Side Includes” — এখানে আপনি পাবলিক কন্টেন্টে পাঞ্চ হোল তৈরি করতে পারবেন এবং সেই হোলটি প্রাইভেট কন্টেন্ট (আনক্যাশড) দ্বারা পূর্ণ করতে পারবেন। এই ফাংশনটি বিশেষ করে ই-কমার্স সাইট, শপিং কার্ট, পারসনালাইজড গ্রিডিংস দেওয়া ক্ষেত্রে ইউজ করা যেতে পারে। ডিফল্টভাবে এই সেটিংসটি ডিসেবল করা থাকে।

Advanced

এই ট্যাবের নাম শুনেই বুঝতে পারছেন এটা অ্যাডভান্সড ইউজারদের জন্য। পরবর্তী আর্টিকেলে এই ট্যাবের সেটিংস গুলো নিয়ে আলোচনা করবো। যদি ভালো ধারণা না থাকে এই ট্যাব থেকে দূরে থাকায় ভালো, যদি একাধিক ক্যাশ প্লাগইন ইউজ করেন সাইটে সেক্ষেত্রে এই অ্যাডভান্স ট্যাবে গরবর করলে সেটিংস গুলো আলাদা প্লাগইন এর সাথে কনফ্লিক্ট করতে পারে।

Debug

এই ট্যাবে টেস্ট করার জন্য কিছুই নেই, যদি আপনার কোন সমস্যা হয় আর আপনি কোন লগ চেক করতে চান সেক্ষেত্রে কেবল এই ট্যাব কাজে লাগবে। যতক্ষণ না কোন সমস্যা তৈরি হয়েছে, ততোক্ষণ এই ট্যাবের আসেপাশে ঘোরার কোনই দরকার নেই। আর হ্যাঁ, নেক্সট টিউটোরিয়ালে বিস্তারিত থাকবে এই ট্যাব নিয়ে!

Crawler

এই সেটিংসটি ও ডিফল্টভাবে ডিসেবল করা থাকে। এটা এনাবল করা থাকলে লাইট স্পীড ক্যাশ এর ক্রোলার আপনার সাইটের প্রত্যেকটি পেজ ভিজিট করবে আর যে পেজ গুলোর ক্যাশ এক্সপায়ার হয়ে গেছে যেগুলোকে রিফ্রেশ করবে, পুরাতন ক্যাশ পার্জ করে নতুন ক্যাশ বিল্ড করবে। ক্রোলার ফিচারটি কিন্তু সার্ভার থেকে অনেক রিসোর্স ইউজ করবে, তাই অনেক হোস্টিং কোম্পানি একে অ্যালাউ নাও করতে পারে। তবে আপনি যদি ভিপিএস সার্ভার বা ডেডিকেটেড সার্ভার ইউজ করেন সেক্ষেত্রে সমস্যা নাই, আপনাকে হোস্টিং থেকে পারমিশন নিতে হবে  না। এটা এনাবল করার মাধ্যমে আপনার ক্যাশ গুলো সর্বদা ফ্রেশ থাকবে!

শেষ কথা

লাইট স্পীড ক্যাশ প্লাগইন থেকে কেবল ক্যাশ সেকশনটি এনাবল করার মাধ্যমেই আপনি আপনার ওয়ার্ডপ্রেস সাইটকে অনেক গতি প্রদান করতে পারবেন। আর হ্যাঁ অপটিমাইজেশন টেকনিক গুলো ইউজ করে আর সঠিক সেটিংস কনফিগ করার মাধ্যমে পেজ স্পীড রাঙ্কিং ফ্যাক্টরে উন্নতি আনতে পারবেন। নেক্সট টিউটোরিয়ালে এ নিয়ে অবশ্যই গভীর আলোচনা করা হবে!


এই আর্টিকেলটি ভালো লেগেছে? তাহলে আমাদের এক্সেলনোড ম্যানেজড ওয়ার্ডপ্রেস হোস্টিং প্যাকের ও আপনি প্রেমে পরতে বাধ্য! আমাদের ম্যানেজড ওয়ার্ডপ্রেস হোস্টিং সাধারণ হোস্টিং থেকে ১০ গুন বেশি ফাস্ট! সাথে আমাদের ২৪/৭ সাপোর্ট তো থাকছেই! সেরা বাংলা ব্লগে প্রকাশিত আমাদের সম্পূর্ণ রিভিউটি এখানে পড়তে পারেন এবং এখান থেকে আমাদের হোস্টিং প্ল্যান চেক করতে পারেন!

এক্সেলনোড প্রো টিপস গুলো ইনবক্সে পেতে ভুলবেন না!

About the Author: ExelNode

You May Also Like

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

প্রিমিয়াম ওয়েব হোস্টিং জিতুন ফ্রিতে!

প্রিমিয়াম ওয়েব হোস্টিং জিতুন ফ্রিতে!

আপনার ইমেইল অ্যাড্রেস প্রবেশ করিয়ে ১ বছর পর্যন্ত ফ্রি ওয়েব হোস্টিং জিতে নিন!

আপনি সফলভাবে সাবস্ক্রাইব করেছেন!